||BanglaClub||.your place to be

tHE oNE & ONLY

Three Bangladeshis killed in ‘drunk shooting’ by BSF man

At least three people including a mother and her child were shot dead and another was injured yesterday as a ‘drunken’ member of Indian Border Security Force (BSF) ran amok at Majhipara of Tetulia upazila in Panchagarh.

The villagers caught the BSF member with firearms and handed him over to the BDR.  The deceased were identified as Majeda Begum, 30, her two-year-old son Mamun and Golam Mostafa, 55. Majeda’s husband Shahidul Isalm, 40, sustained bullet injuries in the incident. His condition was stated to be critical. A BDR high-up confirmed the killings of three Bangladeshis and the detention of a BSF member.

Taherul Islam, officer-in-charge of Tetulia Police Station, told The Daily Star, “A BSF member in uniform intruded into Bangladesh territory at about 10:00pm and attacked the house of Shahidul Islam. He started firing indiscriminately killing Majeda, her son Mamun and their neighbour Mostafa on the spot.”

“Shahidul received two bullets during the attack,” the OC said. At one stage, the villagers caught the BSF member and beat him up. Quoting the villagers, the OC said the BSF member was drunk. On information, BDR members rushed to the scene and took the BSF member into their custody. Sources said tension ran high in the area after the incident. Reported by The Daily Star.

BDNews24.com online news paper of Bangladesh also repoted the following news.

পঞ্চগড়ের গ্রামে ঢুকে তিন বাংলাদেশীকে হত্যা করেছে বিএসএফ

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় মাঝিপাড়া সীমান্তের ময়নাগুড়ি গ্রামে ঢুকে রোববার রাতে তিন বাংলাদেশীকে হত্যা করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) সদস্যরা।

নিহতরা হলেন- ময়নাগুড়ি গ্রামের গোলাম মোস্তফা (৩৫), তার প্রতিবেশী মাজেদা (২৫) ও মাজেদার ছেলে মামুন (১)। মাজেদার স্বামী শহীদুলকে (৩০) আশঙ্কাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পঞ্চগড় ২৫ রাইফেল ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর শেখ ফরিদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, গ্রামবাসী ও বিডিআর সদস্যরা এক বিএসএফ সদস্যকে আটক করেছে।

তিনি বলেন, বিএসএফ সদস্যরা রাত সোয়া ১০টার দিকে গ্রামে প্রবেশ করে। গ্রামের লোকজন বিষয়টি টের পেয়ে বেরিয়ে আসলে বিএসএফ সদস্যরা নির্বিচারে গুলি চালাতে শুরু করে। এতে পাশাপাশি বাড়ির ওই তিন জন ঘুমন্ত অবস্থায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান।

বিএসএফ সদস্যরা চলে যাওয়ার সময় গ্রামবাসী ও বিডিআর তাদের একজনকে আটক করে।

রোববার মধ্যরাতে ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখা যায়, গ্রামের অধিকাংশ মানুষ বাড়ি ছেড়ে কালান্দিগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছে। নিহত মোস্তফা ও শহীদুলের বাড়িসহ আশেপাশের বাড়িতে গুলির চিহ্ন রয়েছে।

শহীদুলের প্রতিবেশী আলমগীর হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, রাতে হঠাৎ গুলির শব্দে তার ঘুম ভাঙে। বিএসএফ এর হামলার বিষয়টি বুঝতে পেরে সাইকেল নিয়ে তিন কিলোমিটার দূরে মাটির পাড়া বিডিআর ক্যাম্পে খবর দেন তিনি।

গ্রামবাসী জানায়, ঘটনার আধঘণ্টা আগে থেকেই সীমান্তের বৈদ্যুতিক বাতি বন্ধ রেখেছিল বিএসএফ। অনুপ্রবেশের বিষয়টি পূর্ব পরিকল্পিত বলে ধারণা করছেন তারা।

মেজর ফরিদ রাত সাড়ে ১২টার দিকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন। পুরো এলাকায় বিডিআর সদস্যরা অবস্থান নিয়েছে।”

November 17, 2008 - Posted by | News | , , ,

No comments yet.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

Follow

Get every new post delivered to your Inbox.

%d bloggers like this: